অনেক কারণেই শিশু অনবরত বমি করতে পারে, তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে গ্যাস্ট্রোএন্টারটাইটিস (“পেট ফ্লু”) এর কারণ। বারবার বমি বাচ্চাদের শরীর থেকে তরল, লবণ এবং খনিজ বের করে দেয় এবং শরীরের পানি ও লবণের ভারসাম্য রক্ষা করা খুব জরুরী। তাই এই হারানো তরল ও খনিজ শরীরে ফিরিয়ে দেয়া প্রথম গুরুত্বপূর্ণ কাজ।

প্রতীকি ছবি: অসুস্থ শিশু
প্রতীকি ছবি: অসুস্থ শিশু

প্রাথমিক চিকিৎসা ও করণীয়:

১. ক্রমাগত বমি হওয়া শিশুকে দুধজাতীয় বা শক্ত খাবার খাওয়াবেন না।
২. অল্প পরিমাণে তরল দিন:

নবজাতক ও ছোট শিশুদের জন্য: প্রতি ১৫-২০ মিনিটে প্রায় ১ টেবিল চামচ ওরস্যালাইন দিন এবং বারবার বুকের দুধ খাওয়ান।
দুই বছরের বেশি বাচ্চাদের জন্য: প্রতি ১৫ মিনিট অন্তর ১ থেকে ২চামচ ওরস্যালাইন, বরফ কনা, আদার রস, লেবুর সরবত বা পাতলা জুস দিন।

এসময় শিশু বারবার বমি করতে থাকলে ২০/৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন এবং আবার তরল দেয়া শুরু করুন।

আর্টিকেল নিয়ে আপনার প্রশ্ন, অভিজ্ঞতা বা ফীডব্যাক শেয়ার করতে পাবলিক টেলিগ্রাম গ্রুপে যোগ দিন
মাতৃত্বের বিভিন্ন নোটিফিকেশন পেতে হোয়াটসএপ গ্রুপে যোগ দিন। এই গ্রুপে শুধুমাত্র এডমিন মেসেজ পাঠান।

৩. ৩-৪ ঘন্টা বমি না হয়ে থাকলে ধীরে ধীরে তরলের পরিমাণ বাড়িয়ে দিন।

৪. ৮ ঘন্টা বমি না করে থাকলে:

নবজাতক ও ছোট শিশুদের জন্য: বরাবরের মতো বুকের দুধ খাওয়ান এবং ১ থেকে ২ চামচ ফর্মুলা খাওয়ান।
দুই বছরের বেশি বাচ্চাদের জন্য: ব্লেন্ড করা বা বেশ নরম খাবার খাওয়ান (ভাত, আপেল সস, টোস্ট, সিরিয়াল, ক্র্যাকার)

৫. ২৪ ঘন্টা বমি না করে থাকলে নিয়মিত খাবার শুরু করুন। তবে আবার বমি শুরু হলে ডাক্তারকে ফোন করুন।

বিপদের লক্ষণগুলো

বমির সাথে যদি নিচের লক্ষণগুলো থাকলে হাসপাতালে নিন/ ডাক্তার দেখান:

  • পানি-শূন্যতার লক্ষণ যেমন শুষ্ক মুখ, চোখ কোটরাগত বা ডুবে যাওয়া, প্রস্রাবের পরিমাণ কমে যাওয়া
  • পেটে তরল রাখতে অসমর্থ হওয়া
  • বমি যদি সবুজ-হলুদ, কফির মতো দেখতে হয়ে যায় বা রক্ত বমি করলে
  • পেট শক্ত ও ফুলে গেলে এবং বাচ্চা পেটে ব্যাথা অনুভব করলে
  • চরম বিরক্তি প্রকাশ করলে
  • ছেলেদের অণ্ডকোষে ফোলাভাব, লালভাব বা ব্যথা থাকলে
  • নবজাতকের ক্ষেত্রে সজোরে বমি করলে

আগাম প্রতিরোধ

  • বারবার হাত ভাল করে ধুয়ে নিন, বিশেষত রান্না করা বা খাওয়ার আগে, কাঁচা মাংস স্পর্শ করার পরে বা বাথরুমে যাওয়ার পরে।
  • পেটের অসুখ আছে এমন কারো নিকটে যাওয়া থেকে বিরত থাকুন

সূত্র

কীডজ হেলথ থেকে অনুদিত
ছবি: ফ্রিপিক

লেখাটি কি আপনার উপকারে এসেছে?
হ্যানা