bird carrying cute baby গর্ভাবস্থা মাসিক

এক কথায়, গর্ভাবস্থায় মাসিক হতে পারে না।

কিছু ক্ষেত্রে সম্ভবা নারী গর্ভাবস্থায় যোনিপথে রক্তপাত হতে দেখেন। খুব অল্প ক্ষেত্রে এরকমও শোনা গেছে যে গর্ভবতী মাসিকের মতো থেমে থেমে রক্তপ্রবাহ দেখছেন। ভাল করে জেনে রাখুন, গর্ভাবস্থায় যোনি থেকে রক্ত বের হলে সেটা কখনোই মাসিক না, বরং অন্যকিছু। চলুন বিস্তারিত জানা যাক।

মাসিক তখনই হয়, যখন আপনি গর্ভধারণ করেননি। প্রতিমাসেই আপনার জরায়ুতে রক্তে পরিপূর্ণ ঘন আস্তর তৈরি হয় যাতে সহবাসে বা অন্যকোনভাবে নিষিক্ত ডিম্বানু যেন এখানে আটকাতে পারে। যদি কোন মাসে আপনি গর্ভধারণ না করেন, তাহলে আপনার শরীর এই টিস্যু ও রক্তের আস্তর দেহ থেকে বের করে দেয়। এই বের হয়ে যাওয়াই মাসিক বা মেনস্ট্রুয়াল পিরিয়ড বা সংক্ষেপে পিরিয়ড।

যখনই কোন ডিম্বানু জরায়ুর দেয়ালে আটকায়, আপনার হরমোন এই রক্ত ও টিস্যুর আস্তরকে শরীর থেকে বের না করার সংকেত দেয়, কারণ এটা ডিম্বানুতে থাকা সম্ভাব্য মানব সন্তানের আবাসস্থল। আপনার গর্ভাবস্থা শেষ না হওয়া পর্যন্ত এই আস্তরন এখানেই থাকবে, এবং এজন্য এসময় আপনার মাসিক হওয়া অসম্ভব।

তাহলে এই রক্তপ্রবাহের ব্যাখ্যা কী?

বিভিন্ন কারণে গর্ভাবস্থায় রক্ত যেতে পারে। এরমাঝে কিছু অবস্থা নিয়ে চিন্তিত হবার কারণ আছে, কিছু একেবারের নির্দোষ।

ইমপ্লান্টেশন ব্লিডিং

অনেক মহিলারা জানান তাদের মাসিকের তারিখের সপ্তাহখানেক আগেই তারা হালকা রক্ত যেতে দেখেন, যেটাকে অনেকে স্পটিং বলে। স্বাভাবিকভাবে তারা একে আগেভাগেই মাসিক হয়ে যাচ্ছে বলে ধরে নেন। কিন্তু দেখা যায় এই রক্তপাত মাসিকের তুলনায় বেশ সামান্য এবং এক বা দুইদিনেই শেষ হয়ে যায়।

একে ইমপ্লান্টেশন ব্লিডিং বলে। নিষিক্ত ডিম্বানু জরায়ুর দেয়ালের আস্তরে আটকে যাওয়ার সময় এই রক্তপ্রবাহ ঘটায় এরকম ধারণা থেকেই এই নামকরণ। তবে নিশ্চিতভাবে আমরা এখনো জানিনা এর কারণ কী।

অন্যান্য কারণ

এছাড়াও নিচের দৃশ্যপটে রক্তপাত হতে পারে:

  • ডাক্তার কর্তৃক প্রত্যক্ষ পরীক্ষার সময় যোনি থেকে রক্তপাত
  • সহবাস
  • কোন পরীক্ষার উদ্দেশ্য সার্ভিক্স বা জরায়ুমুখ থেকে নমুনা সংগ্রহের সময়

যেহেতু গর্ভাবস্থায় সার্ভিক্সে রক্তপ্রবাহ বেশি থাকে, তাই উপরের দৃশ্যপটে রক্তপ্রবাহ ঘটতে পারে।

এছাড়াও নিচের যেকোন ক্ষেত্রে রক্তপাত হতে পারে

  • মিসক্যারেজ
  • এক্টোপিক প্রেগনেন্সি
  • গর্ভফুল বা প্লাসেন্টার কোন সমস্যা
  • সংক্রমণ

সাধারণ নিয়ম হিসেবে গর্ভাবস্থায় রক্তপাত হতে দেখলে (এমনকি রক্তপাত থেমে গেলেও) ডাক্তারের শরণাপন্ন হওয়া জরুরী। কারণ এটা রক্তপাতের পেছনে কোন গুরুতর সমস্যা কাজ করছে কি না তা নিশ্চিত হওয়া দরকার। যদিও বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই সামান্য রক্তপাত হওয়া গর্ভবতী কোন জটিলতা ছাড়াই সন্তান প্রসব করে থাকে।

যদি আপনার গর্ভাবস্থায় রক্তপাতের সাথে কোন ধরনের ব্যাথা থাকে, তাহলে অতিদ্রুত ডাক্তারের সাথে কথা বলুন বা হাসপাতালের জরুরী বিভাগে যান।

লেখাটি রিভিউ করেছেন –

ডাঃ নুসরাত জাহান প্রমা
এমবিবিএস
জেনারেল প্র্যাকটিশনার

তথ্যসূত্রঃ বেবিসেন্টার
ছবি কৃতজ্ঞতাঃ ফ্রিপিক