সিরিজ ইনডেক্স
১. প্রথম পর্ব
২. দ্বিতীয় পর্ব
৩. তৃতীয় পর্ব
৪. চতুর্থ পর্ব
৫. পঞ্চম পর্ব

ডেলিভারির পর নতুন বাচ্চা সামলানোর স্ট্রেসের পাশাপাশি প্রল্যাপ্সের সিম্পটম ফেস করা একজন মায়ের জন্য মানসিকভাবে খুবই কষ্টকর হবার কথা। এ ব্যাপারে জানা না থাকলে ভয় পেয়ে যাওয়াও স্বাভাবিক।

তবে জেনে রাখুন ডেলিভারির পর পর দুর্বল শরীরে, ব্রেস্টফিডিং পিরিয়ডে আপনার প্রল্যাপ্সের যে সিচুয়েশন তা সবসময় এরকম থাকবে না ইন শা আল্লাহ। যদি সঠিকভাবে নিজের যত্ন নেন তাহলে আস্তে আস্তে সিম্পটম কমে আসবে।

এরপরে হয়ত এমন কিছু দিন আসবে যখন আপনার বড় বাচ্চা চাইবে মায়ের কোলে উঠতে, কিছু রাত হয়ত আপনার ছোট বাচ্চাকে সারারাত কোলে নিয়ে হাটতে হবে, কিছু দিন হয়ত আপনার কোন সাহায্যকারি না থাকায় ভারী কাজ একাই করতে হবে, কিছু দিন হয়ত আপনি একা থাকায় ঠিক মত বাথরুমে যেতে পারবেন না- এমন দিনগুলোতে প্রল্যাপ্সের সিম্পটম ফিরে আসলে ভেংগে পড়বেন না।

আর্টিকেল নিয়ে আপনার প্রশ্ন, অভিজ্ঞতা বা ফীডব্যাক শেয়ার করতে মাতৃত্ব ডট কম পরিচালিত সামাজিক চ্যানেলে যোগ দিন

আবারও একটু সচেতনভাবে চললে সব ঠিক হয়ে যাবে ইন শা আল্লাহ। কিছুদিন এক্সট্রা একটু ব্যায়াম করবেন, রেস্ট নিবেন। মানসিকভাবে চাপমুক্ত থাকার চেষ্টা করবেন। অভুলেশনের সময় প্রল্যাপ্স একটু বেশি সিম্পটম্যাটিক হয়, এটাও মাথায় রাখবেন।

আমরা মায়েরা বাচ্চাদের জন্য অনেক কষ্ট করি। অন্যদের খালি চোখে যা তুচ্ছাতিতুচ্ছ তাও একজন মায়ের বড় ত্যাগ। নিজের শরীরের পরিবর্তন গুলো- সি সেকশানের ক্ষত, পেট বেড়ে যাওয়া, স্ট্রেচ মার্ক, চুল পড়ে যাওয়া, ব্রেন ফগ, চোখের নিচে কালি, ব্রেস্ট শেপ চেঞ্জ হওয়া- আরো কত কিছু। বাচ্চাদের জন্য সময় দিতে গিয়ে নিজের বেসিক যত্ন টা নেওয়াও তো বিলাসিতা। জীবনের বড় একটা সময় সন্তানদের জন্য বাস্তবিক অর্থেই ‘উজার’ করে দেয়া হয়। মানসিক আর শারিরিক দুই দিক দিয়েই মায়েরা কত ত্যাগ করেন।

মাঝেমাঝে burn out হয়ে যখন মন খারাপ লাগবে তখন সূরা লুক্বমানের আয়াতের এই অংশের কথা ভাববেন-

…His mother carried him, [increasing her] in weakness upon weakness…

…তার মা তাকে কষ্টের পর কষ্ট করে গর্ভে ধারণ করেছে…

মায়েদের ত্যাগের, কষ্টের স্বীকৃতি দিয়েছেন স্বয়ং আল্লাহ তা’আলা। ওয়াহনান ‘আলা ওয়াহন। কষ্টের উপর কষ্ট। দুর্বলতার উপর দুর্বলতা।

দোআ

সন্তানের জন্য নিজের শরীরে যা যা দুর্বলতা এসেছে, যা যা কষ্ট ভোগ করছেন- এগুলো আর কেউ না জানুক বা না জানুক, আল্লাহ তা’আলা জানেন। আল্লাহ তা’আলা দেখছেন। আর নিশ্চয়ই আল্লাহ তা’আলার কাছেই রয়েছে সর্বোত্তম প্রতিদান।

তথ্যসূত্র

Sura Luqman 31:14

وَوَصَّيْنَا ٱلْإِنسَٰنَ بِوَٰلِدَيْهِ حَمَلَتْهُ أُمُّهُۥ وَهْنًا عَلَىٰ وَهْنٍ وَفِصَٰلُهُۥ فِى عَامَيْنِ أَنِ ٱشْكُرْ لِى وَلِوَٰلِدَيْكَ إِلَىَّ ٱلْمَصِيرُ

And We have enjoined upon man [care] for his parents. His mother carried him, [increasing her] in weakness upon weakness, and his weaning is in two years. Be grateful to Me and to your parents; to Me is the [final] destination.

লেখাটি রিভিউ করেছেন –

ডাঃ মাশরুরা মাহজাবিন
MBBS
General Practioner, Trained Mental health counselor

লেখাটি কি আপনার উপকারে এসেছে?
হ্যানা