বাচ্চা পর্যাপ্ত বুকের দুধ পাচ্ছে কি?সাধারণত সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর প্রথম তিন দিন বুকের দুধ আসে না। এজন্য চিন্তিত হবেন না। এ সময় মায়ের বুকে যতটুকু শাল দুধ আসে ততটুকু দুধ শিশুর জন্য যথেষ্ট। শিশুকে শাল দুধ খাওয়াতে কখনোই ভুল করবেন না। তিন দিন পর যখন মায়ের বুকে দুধ আসবে তখন বার বার শিশুকে দুধ খাওয়ান। মনে রাখবেন, যত বেশি বুকের দুধ খাওয়াবেন তত বেশি দুধ উৎপাদন হবে। কারণ মায়ের বুকের দুধ উৎপাদনের একমাত্র উদ্দীপক (Stimulus) হলো শিশুর দুধ টানা। অর্থাৎ শিশু যত দুধ টানবে, মায়ের মস্তিষ্কের পিটুইটারি গ্রন্থি তত উদ্দীপ্ত হয়ে বেশি বেশি প্রলেকটিন হরমোন তৈরি করবে। তত বেশি দুধ উৎপাদিত হবে। অন্যথায় বুকের দুধ উৎপাদন ধীরে ধীরে কমে যাবে এবং একসময় তা বন্ধ হয়ে যায়।

সন্তান প্রসবের পর থেকে ছয় মাস পর্যন্ত শুধু বুকের দুধ অত্যাবশ্যক। এ সময় অধিকাংশ মায়ের একটি প্রধান দুশ্চিন্তা হলো, তার সন্তান পর্যাপ্ত দুধ পাচ্ছে কি-না। অনেকসময় মা মনে করেন, তার দুধ কমে যাচ্ছে এবং সন্তানকে ফর্মুলা বা কৌটার দুধ দেয়ার চিন্তা করেন, যেটা সঠিক নয়।

আপনার সন্তান পর্যাপ্ত দুধ পাচ্ছে কিনা তা বোঝার জন্য কিছু সহজ উপায় তুলে ধরা হলো:

  • শিশু যথেষ্ট দুধ পাচ্ছে কিনা তা বোঝার সবচেয়ে ভালো উপায় হলো নবজাতকের ওজন বৃদ্ধি। কারণ জন্মের পর শিশুর ওজন কমে যাওয়া স্বাভাবিক। কিন্তু পরবর্তী পাঁচ অথবা ছয় দিন পর শিশুর ওজন ধীরে ধীরে বাড়তে শুরু করে।
  • শিশুর দুধ খাওয়ার সময় দুধ গিলে ফেলার শব্দ লক্ষ করুন এবং মুখের ভিতর ঠোঁটের কোনে দুধ দেখা যাচ্ছে কিনা তা খেয়াল করুন।
  • বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় স্তনে কোনো ব্যাথা অথবা অস্বস্তি অনুভব করবেন না।
  • সাধারণত নবজাতক দিনে সাত থেকে আট বার দুধ খেয়ে থাকে। লক্ষ রাখুন, পর্যাপ্ত দুধ পেলে আপনার শিশু নিজ থেকে দুধ টানা বন্ধ করবে এবং প্রতিবার খাওয়ার পর স্বস্তি অনুভব করবে।
  • দীর্ঘ সময় ধরে স্তন পান না করালে , দুধ জমে আপনার স্তনে ব্যাথা এবং ভারী অনুভূত হবে। এ সময় শিশুকে দুধ খেতে দিন এবং পর্যাপ্ত দুধ পেলে আপনার স্তন হালকা অনুভূত হবে।
  • অাপনার বাচ্চা যখন জেগে থাকে, তখন সে মুখভঙ্গির মাধ্যমে দুধ খেতে চাইবে।
  • দুখ খাওয়া সময় বাচ্চা তার ছন্দ পরিবর্তন করে এবং বিরতি দিয়ে খায়। বিরতির পর যখন সে খাবার জন্য প্রস্তুত হয়,তখন সে নিজ থেকেই মুখ এগিয়ে অানবে।
  • বাচ্চার বয়স পাঁচ দিন হবার পর তার মলের রং হলদেটে রং ধারণ করবে।

যদি উপরের বেশিরভাগ পয়েন্টে অাপনার সাথে না মিলে তাহলে সম্ভবত অাপনার বাচ্চা পর্যাপ্ত পরিমাণে দুধ পাচ্ছে না। সেক্ষেত্রে প্রথমেই অাপনি বাচ্চাকে যেভাবে দুধ খাওয়ান সেটা পরীক্ষা করুন। শিশুর যথেষ্ট পরিমাণে দুধ পেতে হলে জন্মের পর যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দুধ দিতে হবে এবং বারবার ধৈর্য ধরে খাওয়াতে হবে। দুধ খাওয়ানোর সময় কাঁধ মাথা সমান্তরাল রাখতে হবে এবং স্তনের বোটার কালো অংশের এক ইঞ্চি পর্যন্ত পুরোটা শিশুর মুখের ভিতর ঢুকাতে হবে। এছাড়া বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় স্তনে কোনো ব্যাথা অথবা অস্বস্তি অনুভব করবেন না