প্রেগন্যান্সির ট্রাইমিষ্টার

প্রেগন্যান্সির ট্রাইমিষ্টার

প্রেগন্যান্সির শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত গোটা সময়কে হিসাবের সুবিধার্থে তিনভাগে ভাগ করা যায়। প্রত্যেকটা ভাগ এক একটা ট্রাইমিষ্টার হিসেবে পরিচিত। ল্যাটিন ভাষায় ট্রাই মানে তিন আরে মেনসেস মানে মাস। মোটামুটি গোটা প্রেগন্যান্সির সময়কে তিনভাগে ভাগ করে একে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় ট্রাইমিষ্টারে ভাগ করা হয়েছে। ঠিক কখন থেকে একটা ট্রাইমিষ্টার শেষ ও আরেকটা শুরু হবে সেটা নিয়ে মতভেদ থাকলেও আনুমানিক তিন মাস সময় ধরে এক একটা ট্রাইমিষ্টার হিসাব করা হয়।

প্রি-কনসেপশন/ জেষ্টেশন (Gestation) ট্রাইমিষ্টার

সাধারনত গর্ভধারনের সময়কাল ৪০ সপ্তাহ বা ২৮০ দিন। লাষ্ট পিরিয়ডের প্রথম দিন থেকে এই হিসাব শুরু হয়। এই ৪০ সপ্তাহকেই তিনভাগে ভাগ করা হয়। মাসের হিসাব থেকে যা কিছুটা আলাদা। সেই হিসাবে প্রথম ট্রাইমিষ্টার চলে ১৩ সপ্তাহ পর্যন্ত। তারপর দ্বিতীয় ট্রাইমিষ্টার শুরু হয় এবং চলতে থাকে ২৬ সপ্তাহ পর্যন্ত। তৃতীয় ট্রাইমিষ্টার এর পর থেকে শুরু করে চলে ৪০ সপ্তাহ অবধি।
লাষ্ট পিরিয়ডের প্রথম দিন জানা থাকলে এই ৪০ সপ্তাহ বা ২৮০ দিনের প্রেগন্যান্সি পিরিয়ড মাথায় রেখে সহজেই ইডিডি বা এক্সপেক্টেড ডেলিভারী ডেট বের করা যায়।

ট্রাইমিষ্টার মাস সপ্তাহ
প্রথম ট্রাইমিষ্টার
(সপ্তাহ ১-১৩)
১-৪
৫-৮
৯-১৩
দ্বিতীয় ট্রাইমিষ্টার
(সপ্তাহ ১৪-২৬)
১৪-১৭
১৮-২১
২২-২৬
তৃতীয় টাইমিষ্টার
(সপ্তাহ ২৭-ডেলিভারী পর্যন্ত)
২৭-৩০
৩১-৩৫
৩৬-৪০

প্রত্যেকটা ট্রাইমিষ্টারে মায়ের শারীরিক- মানসিক পরিবর্তনের পাশাপাশি বাচ্চার ডেভেলপমেন্ট ঘটতে থাকে। কনসেপশনের শুরু থেকে ভ্রুনের ডেভেলপমেন্ট ঘটতে থাকে, মোটামুটি ২৭ সপ্তাহের শুরু পর্যন্ত তার গুরুত্বপূর্ন শারীরিক গড়ন চলতে থাকে। এর থেকে ডেলীভারি আগে পর্যন্ত বাচ্চার গঠন ম্যাচিউরিটি পায়, ইমিউন সিস্টেম ডেভেলপ করে।
প্রেগন্যান্সি চমৎকার একটা জার্নি। কোন ট্রাইমিষ্টারে কোন ধরনের শারীরিক-মানসিক পরিবর্তন হয়, তার সাথে কোন স্টেজে বাচ্চার ডেভেলপমেন্ট কেমন হয় জানা থাকলে স্বাভাবিকতা সম্পর্কে ধারনা পাওয়া যায়।

ছবি কৃতজ্ঞতাঃ মাই হেলদ ডট আলবার্টা ডট সি এ